iVoomi i2 Review

দ্বারা Ashwani Kumar | আপডেট করা May 22 2018
iVoomi i2  Review
DIGIT RATING
61 /100
  • design

    58

  • performance

    63

  • value for money

    57

  • feature

    65

  • PROS
  • প্রিমিয়াম ডিজাইন
  • ভাল ব্যাটারি লাইফ
  • গড় ডিসপ্লে
  • কম বাজেটের ফোন
  • CONS
  • ক্যামেরা নিরাশা দায়ক
  • পার্ফর্মেন্সে তেমন ভাল নয়
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সারের অভাব
  • খুব তাড়াতাড়ি গরম হয়ে যায়

নির্ণয়

সবার শেষে আপনাদের এটা বলব যে আপনারা যদি 10 হাজার টাকা দামের মধ্যে কোন ভাল ডিজাইনের গর স্মার্টফোনের সন্ধানে থাকেন তবে আপনাদের iVoomi i2 স্মার্টফোনটির ডিজাইনের বিষয়ে ভাল লাগতে পারে। তবে যদি কোন কারনে এই স্মার্টফোনটি আপনাদের পছন্দ না হয় তবে তবে আপনারা এও জানেন যে বাজারে এই দামের মধ্যে স্মার্টফোনের অভাব নেই। আপনারা যদি এই দামের কোন স্মার্টফোন কিনতে চান তবে Xiaomi Redmi Note4 আর Xiaomi Redmi 5 স্মার্টফোনটিতে আপনারা দেখতে পারেন আর এছাড়া InFocus Snap 4 ও আপনারা পাবেন। আর এর সঙ্গে Honor য়ের Honor 6x স্মার্টফোনটিও এই দামে পাওয়া যাবে। আর এছাড়া লেনোভো K6 Power, Moto G5, Lenovo K8 Plus, Lenovo Z2 PlusK6 Power, Moto G5, Lenovo K8 Plus, Lenovo Z2 Plus আর প্যানাসনিকের Eluge Ray 700 য়ের মতন স্মার্টফোনও পাওয়া 

BUY iVoomi i2

Buy now on flipkart পাওয়া যাচ্ছে 7499

iVoomi i2 detailed review

এমনিতে বাজারে এই সময়ে স্মার্টফোনকে ট্রেন্ডিং ফিচারের সঙ্গে লঞ্চ করা হয়, তবে সব স্মার্টফোনেই এমন কোন একটা ফিচার থাকে যা তাকে অন্য ফোনের থেকে আলাদা বানায়। আর এবার আমরা যদি কিছু ট্রেন্ডি ফিচার্সের বিষয়ে কথা বলি তবে এখন ফেসআনলক ফিচার, ইনফিনিটী ডিসপ্লে, গ্লাস ব্যাক, ডুয়াল ক্যামেরা আর বেশ কিছু অন্য অসধারন ফিচার্স পাওয়া যায়। আর আমারা যদি এই সব ফিচার্স যুক্ত স্মার্টফোনের বিষয়ে কথা বলি তবে কনিফিউসানের কারনে কিছু দামি স্মার্টদফোনের দিকে যেতে পারেন। আর আপনারা যদি 8,000টাকা দামের মধ্যে এই সব ফিচার্স যুক্ত কিছু স্মার্টফোন চান তবে আমারা আপ্নদাএর সদ্য লঞ্চ হওয়া একটি ফোনের বিষয়ে বলব। যার দাম মাত্র 7,4999টাকা। আর এই ডিভাইসটি ফ্লিপকার্টের মাধ্যমে কেনা যেতে পারে। এই ডিভাইসটি ভারতের বাজারে iVoomi i2 নামে লঞ্চ করা হয়েছে।


এমনিতে আপনারা যদি 10হাজার টাকা দামের মধ্যে একটি ভাল স্মার্টফোন কিনতে চান যাতে ভাল ক্যামেরা, বড় ডিসপ্লে আর গেমিং ভালভাবে করা যায় আর যাতে আজকালের ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সার /ফেস আনলক ফোনে খুব দরকারি জিনিস বলে মনে করা হয় আর আজকাল এই সব বৈশিষ্ট্য যুক্ত অনেক স্মার্টফোনই বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। আর সাওমিতো এখন এই সব ক্ষেত্রে নিজের একটা আলদা যায়গা করে নিয়েছে। আর এই সব দেখে এই ক্ষেত্রে সবার আগে যে স্মার্টফোনের কথা মনে হয় তা হল Xioami Remi 5 য়ের মতন স্মার্টফোনের কথা বলা যায়। এই স্মার্টফোনটি ভারতে তিনটি আলদা আলদা স্টোরেজ ভেরিয়েন্টে লঞ্চ করা হয়েছে।

তবে এই স্মার্টফোনটির সঙ্গে সঙ্গে ভারতের বাজ্রে একটি নতুন স্মার্টফোন এসেছে, যা নিজেদের প্রিমিয়াম ডিজাইনের কারনে Xiaomi Redmi 5 স্মার্টফোনের সঙ্গে করা প্রতিযোগিতা দিতে পারে। তবে এই দামে এছাড়া আরও স্মার্টফোন আছে। তবে iVoomi i2 ডিভাইসটি আপনারা আলাদা আলাদা স্টোরেজ আর র‍্যামের ভেরিয়েন্টে পাবেননা, কারন এটি শুধু একটি র‍্যাম আর স্টোরেজ ভেরিয়েন্টে লঞ্চ করা হয়েছে। এই ডিভাইসটির র‍্যাম 3GB আর এর স্টোরেজ 32GB। এই ডিভাইসটি ভারতে একটি প্রিমিয়াম ডিজাইনের সঙ্গে মাত্র 7,499টাকায় কিনতে পাওয়া যাবে।

তবে এই দামে আপনারা অন্য কিছু স্মার্টফোনও বাজারে কিনতে পারবেন, আর আপনারা চারটি ক্যামেরা যুক্ত InFocus Snap 4 পাবেন, আর এছাড়া আপনারা লেনোভো K6 Power, Moto G5, Lenovo K8 Plus, Lenovo Z2 Plus আর প্যানাসনিক  Eluga Ray 700 য়ের মতন স্মার্টফোন পাবেন। এই সব স্মার্টফোন আপনারা এই দামের কাছাকাছি দামের মধ্যেই পাবেন। আর এই সব স্মার্টফোন গুলি নিজেদের মধ্যে সেরা বলা যায়। আর এখানে এই স্মার্টফোন গুলির বিষয়ে বেশি কথা না বলে আসুন আমরা iVoomi i2 স্মার্টফোনটির বিষয়ে কথা বলি। এই স্মার্টফোনটির ডিজাইন বেশ ভাল আর এই স্মার্টফোনটিতে আমার যা বেশি স্পেশাল বলে মনে হয়েছে তা হল এর ডিজাইন, এটি বেশ আকর্ষণীয়। তবে এই ফোনের ক্যামেরা আমার তেমন ভাল লাগেনি। তবে এই ডিভাইসটিতে একটি ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ দেওয়া হয়েছে।

তবে এছাড়া আপনাদের এটা বলে রাখি যে এতে অ্যান্ড্রয়েড 8.0 Oreo দেওয়া হেয়ছে আর এতে একটি 4,000mAhয়ের ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। এই ডিভাইসটিকে আমি বিগত 7-8দিন ধরে নিজের মেন ফোন হিসাবে ব্যাবহার করেছি আর এই সময়ে এই ফোনে আমি গেমিং, ব্রাউজিং, সোশ্যাল মিডিয়া, ছবিতোলা ইত্যাদি সব কাজই করেছি তবে এই ফোনের ডিজাইন আমায় বেশি আকর্ষিত করলেও এর পার্ফর্মেন্স আর ক্যামেরা আমার তেমন ভাল লাগেনি। এই ডিভাইসটি রিভিউ করার সময়ে এটা দেখেছি যে গেমিংয়ের সময়ে এটি বেশি গরম হয়ে যায়।

এই ডিভাইসটির রিভিউ করার সময়ে প্রথমে এই ডিভাইসে হেভি গেমিং করেছি এর কারন এই যে আমাকে বলা হয়েছিল যে 3GB র‍্যামের সঙ্গে এতে 1.5GHzয়ের কোয়াড-কোর মিডিয়াটেক 6739 চিপসেট দেওয়া হয়েছে। আর আমার মনে হয়েছিল যে এতে ভাল করে গেমিং করা যাবে কিন্তু বাস্তবে তেমন হয়নি। আমার কাছে এই স্মার্টফোনটি আসার সঙ্গে সঙ্গে আমি প্রথমেই গুগল প্লে স্টোর থেকে এস্ফলাট 8 গেম আর আমার পছন্দের ফ্রুট নিঞ্জা ডাউনলোড করেছিলাম আর তা খেলাও শুরু করে দি। এর আগের বেশ কিছু স্মার্টফোনের রিভিউয়ের সময়ে আমি এটা দেখেছি যে কিছু স্মার্টফোনে একটু ক্ষন হেভি গেমিং করলে ফোন গরম হয়ে যায় আর এই ফোনের সঙ্গেও আমি ঠিক তেমনই দেখেছি। তবে আসুন এই স্মার্টফোনের পার্ফর্মেন্সের ক্ষেত্রে এই স্মার্ট ফোনে আমরা আর কি পেলাম তা দেখা যাক।

বিল্ড আর ডিজাইন

আমরা যদি এই স্মার্টফোনটির ডিজাইনের বিষয়ে কথা বলি তবে এই স্মার্টফোনে আমার এর প্রিমিয়াম ডিজাইন সবথেকে বেশি ভাল লেগেছে। আর এছাড়া এই ডিভাইসটিকে একটি গড় ডিভাইস বলা যায়। এর অন্য ফিচার্স আমরা যদি দেখি তবে দেখা যাবে যে এতে আপনারা তেমন কিছু আলদা পাবেন না। আপনাদের বলে রাখি যে এই ফোনটি প্রথমে দেখে আমার মনে হয়েছিল যে এটি প্রায় 10,000টাকা থেকে 15,000টাকা দামের মধ্যে হবে কিন্তু এর ডিজাইন দেখে এরকম মনে হওয়ার পরে এর দাম কিন্তু মাত্র 7,499টাকা। আর এর কারন এর অসাধারন ডিজাইন। আর এই ডিভাইসে গ্লাস ব্যাক দেওয়া হয়েছে। এই দামের মধ্যে এরকম ডিজাইন আমি আর কোথাউ দেখিনি। ডুয়াল ক্যামেরাকে স্মার্টফোনের রেয়ার প্যানেলে বাঁ দিকে ভার্টিকালি দেওয়া হয়েছে। এই ক্যামেরা মডিউলে ক্যামেরার ওপরে নীচে আর মাঝখানে এর LED ফ্ল্যাশ দেওয়া হয়েছে। আর এছাড়া এর গ্লাস ব্যাকের মিডলী এর ব্র্যান্ডিং আপনারা দেখতে পাবেন।

ফোনটিতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানারের জায়গায় গুগলের স্মার্টলকে ফেস আনলক ফিচার দেওয়া হয়েছে , আর এই ফিচার আপনারা এই স্মার্টফোনে ব্যাবহার করতে পারবেন। আর এর জন্য আপনাকে এই ফোনটিকে প্রথমে ইন্টারনেটের সঙ্গে যুক্ত করতে হবে আর তাহলেই এই ফিচারটি আপনারা দেখতে পারবেন। এছাড়া এই ফোনের ডিসপ্লেতে 2.5D কার্ভ দেখা যাবে, আর এর সঙ্গে ফোনের ব্যাকে এর স্পিকার গার্ল ফোনের বটমে দেওয়া হয়েছে। আর যা সাধারনরত মাইক্রো USB Type Port য়ের কাছাকাছি থাকে, কিন্তু এর ডিজাইনে কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে, আর বটম ছাড়া টপে মাইক্রো USB পোর্ট আর হেডফোন জ্যাকের যায়গা দেওয়া হয়েছে।

আর এছাড়া এতে ভলিউম রকার আর পাওয়ার বটন ফোনের ডান দিকে দেওয়া হয়েছে। আর এছাড়া ফোনটি গ্লাস ব্যাক আর প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি হওয়ার কারনে ব্যাটারি আলাদা করা যেতে পারে কারন  এর ব্যাক প্যানেল কে আপনি সহজেই সরাতে পারবেন। তবে এর ব্যাটারি কে আলদা করা যায়না। আপনি শুধু ব্যাক প্যানেলকেই আলাদা করতে পারবেন, ব্যাটারি কে নয়। ফোনটিতে ডুয়াল হাইব্রিড সিম স্লট দেওয়া হয়েছে আর যা আপনারা ব্যাক প্যানেল সরালে সহজেই দেখতে পারবেন।

এই ধরনের পজিশান আমার নিজেরও ব্যাক্তিগত ভাবে বেশি পছন্দ কারন এই বটনের পজিশানের ফলে ফোনকে এক হাতে ব্যাবহার করা যায়। আর এর মানে এই যে আপনি এক হাতে এই স্মার্টফোনটি ব্যাবহার করতে পারবেন। আমি iVoomi i2 স্মার্টফোনটিকে খুব সহজেই এক হাতে ব্যাবহার করতে পেরেছি আর আমার এরকম করতে কোন সমস্যা হয়নি। সব মিলিয়ে এই ফোনটির ডিজাইন আর সিমপ্লেসিটি আমার বেশ আকর্ষণীয় আর প্রিমিয়াম লেগেছে। আর এছাড়া এই ডিভাইসটি আলদা আলদা তিনটি কালারে পাওয়া যাবে- Olive Black, Bronze Gold আর Indigo Blue এই কালার অপশানে পাওয়া যাবে।

স্পেসিফিকেশান আর ফিচার্স

আমরা এর ডিজাইন আর বিল্ডের বিষয়ে কথা বলেছি তবে এর স্পেসিফিকেশানের বিষয়ে কথা বলাও দরকার। আজকাল এই ধরনের স্পেক্স আপনারা সহজেই দেখতে পাবেন। আসুন এবার iVoomi i2 য়ের স্পেক্সের বিষয়ে দেখা যাক...

এই ফোনটিতে একটি 5.45 ইঞ্চির ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এটি একটি HD+ ডিসপ্লে যার অ্যাস্পেক্ট রেশিও 18:9। আর এটি কোন ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসে কম তবে আমার এটি খুব সাধারন বলে মনে হয়েছে। এই ফোনটিতে অ্যান্ড্রয়েড 8.0 Oreo আচঝে আর এর সঙ্গে এতে ডুয়াল 4G সাপোর্টও দেওয়া হয়েছে। এই ফোনের র‍্যাম 3GB আর এর স্টোরেজ 32GB। আর এই স্টোরেজকে মাইক্রোএসডি কার্ড দিয়ে 128GB পর্যন্ত এক্সপেন্ড করা যায়।

আর এবার যদি আমরা ছবি তোলার কথা বলি তবে এই ফোনে ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ দেওয়া হয়েছে যা 13+2মেগাপিক্সালের ক্যামেরা অফার করে আর এছাড়া এতে সফট ফ্ল্যাশ আর সোনি সেন্সার 5P লেন্স দেওয়া হয়েছে আর এই ডিভাইসে একটি 8মেগাপিক্সালের 4P স্লিম লেন্স আছে। আমরা যদি ক্যামেরার কথা বলি তবে এটা আমায় সেভাবে ইম্প্রেস করতে পারেনি। আর এছাড়া এই ফোনে একটি 4,000mAhয়ের ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। আর এটি খুব সহযে আপনাকে একদিন চালিয়ে দেওয়া যাবে। আর এই ফোনের ব্যাটারিকে ভাল বলা যায়।

আর এর সঙ্গে আপনাদের এও বলে রাখি যে এতে মিডিয়াটেকMT6739 কোয়াড কড় প্রসেসার দেওয়া হয়েছে, জার জন্য একে আমি খুব একটা ভাল বলতে পারছিনা। এই ডিভাইসের পার্ফর্মেন্স নিয়ে আমার কোন অভিযোগ থাকলে তা এর প্রসেসারের কারনে। আর এই ডিভাইসে যদি সাওমির মত্ন কোয়াল্কমের কোন 4সিরিজের প্রসেসার দেওয়া হত তবে এতে অনেক পার্থক্য হত। আর আমায় এটা বলতেই হচ্ছে যে এর প্রসেসারের কারনে এর পার্ফর্মেন্স ভাল নয়।

ডিস্প্লে আর UI

এই স্মার্টফোনটিকে ভাল বলা যায় এর কারন এর কালার বেশ ব্রাইট আর কালার রিপ্রোডাকশানও বেশ ভাল। আর এই ফোনটির ভিউয়িং অ্যাঙ্গেলও বেশ ভাল। যে কোন অ্যাঙ্গেল থেকে এতে ভিডিও দেখলে তাতে কোন সমস্যা দেখা যায়না। আর এর ডিসপ্লে আমার বেশ ভাল লেগেছে। তবে Xiaomi Remi 5 ডিভাইসটি এই ক্ষেত্রে আরও ভাল। আর আপনারা যদি এই স্মার্টফোনে কাজ  করার সময়ে ইউজার্স একে ডায়রেক্ট আলোতে ব্যাবহার করেন তবে আপনাদের কোন সমস্যা হবে না। আর এছাড়া এই ডিসপ্লের ঠিক ওপরে আর ফ্রন্ট ক্যামেরা আছে। আর আমরা এর আগেই বলেছি যে এতে 5.45ইঞ্চির ডিস্পলে দেওয়া হয়েছে। এটি একটি HD+ 18:9 অ্যাস্পেক্ট রেশিওর ডিসপ্লে। এই ফোনটির টাচ এক্সপিরিয়েন্স ভাল আর আমরা যদি একে সাধারন বলি তবে তা খুব একটা ভুল নয়। এই ফোনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সার নেই আর এতে অবশ্য গুগলের স্মার্টলক আছে আর যার মাধ্যমে এই ফোনে ফেস আনলক ব্যাবহার করা যায়।

এই ফোনটির UIয়ের বিষয়ে যদি আমরা কথা বলি তবে এটি বেশ সাধারন। আর এটির ওপরে কোম্পানি কিছু কাজ করতে পারত, এই ফোনে যখন এত ভাল ফিচার কম দামে দেওয়া হয়েছে তখন কিছু কাজ UI য়ের ওপরেও করলে ভাল  হত। তবে এই স্মার্টফোনটি নিয়ে আমি এটুকু বলতে পারি যে আপনারা যদি এই দামের মধ্যে একটি ভাল স্মার্টফোনের সন্ধানে থাকেন তবে সেই সন্ধান এখানে শেষ হতে পারে। তবে আপনি এর আগে যদি কোন বেশি দামি বা ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন ব্যাবহার করে না থাকেন তবে আপনার এর UI সাধারন লাগার সঙ্গে সঙ্গে বেশ সহজও মনে হবে। এই ফোনটিতে আগে প্রি-লোডেড কিছু অ্যাপ পাওয়া যাবে আর এটা আলদা কথা যে এগুলি আপনি ডিলিট করতে পারবেন না।

ক্যামেরা

এই স্মার্টফোনটির ক্যামেরার বিষয়ে আমরা যদি দেখি তবে দেখা যাবে যে আমি যেমন আপনাদের আগেই বলেছি যে এর ক্যামেরা আমায় বেশ নিরাশ করেছে। তবে বেশি আলোতে এই ফোনটি দিয়ে আপনি ভাল ছবি নিতে পারবেন তবে এই ক্যামের যদি কম আলোতে ছবি তোলে তবে এটি আপনাকে নিরাস করবে। এই ফোনের ফ্রন্ট ক্যামেরা আমাকে নিরাশ করেছে। ফোনটিতে 13 আর 2মেগাপিক্সালের রেয়ার ক্যামেরা সফট ফ্ল্যাশের মতন ছবি তোলে আর এটি যথেষ্ট নয়। এই ক্যামেরাকে গড় ক্যামেরা বলা যায়। আর এছাড়া এর 8মেগাপিক্সালের ফ্রন্ট ক্যামেরা ভাল বলা যায়না। আর এই দামেতো একে ভাল বলা যায়ই না। এই দামের মধ্যে আরও অন্য অনেক ডিভাইসে এর থেকে বেশি ভাল ক্যামেরা পাবেন। এই ফোনের ক্যামেরা আমি ল্যাবে অন্ধকারে আর আলোতে ছবি তুলেছি আর এই ফোনের ক্যামেরায় তোলা ছবি নিরাশাদায়ক।

আমি একদন অন্ধকারে এই স্মার্টফোন থেকে ছবি তুলেছি আর ফ্ল্যাশ লাইটের মাধ্যমে ছবি নেওয়ার জন্য এই ছবি বেশ খারাপ আর এই বাজেটে এর থেকে ভাল ক্যামেরা পাওয়া যায়। আর এর সঙ্গে বেশি আলোতে নেওয়া ছবি বেশ ভাল। আর এছাড়া বেশি দামের Xiaomi Redmi 5, Redmi Note 5, আর Redmi Note 5 Pro ছাড়া Note 3 আর Xiaomi Redmi Note 4 য়ের ক্যামেরা যদি দেখি তবে সে গুলি সত্যিই বেশ ভাল। এই ফোনের ক্যামেরা অ্যাপ দেখে এটাই মনে হয় যে আপনি এটি একবারেই বুঝে যাবেন। আর এর জন্য আপনাকে বেশি কষ্ট করতে হবেনা। আপনারা সব মোডই সহজেই ব্যাবহার করতে পারবেন। ফোনের ক্যামেরা থেকে নেওয়া কম আলো আর বেশি আলোর কিছু হচবি আপনাদের জন্য।

বেশি আলোতে নেওয়া ছবি

কম আলোতে নেওয়া ছবি

 

পার্ফর্মেন্স আর ব্যাটারি

আর এই স্মার্টফোনের পার্ফর্মেন্সের বিষয়ে আমরা যদি কথা বলি তবে দেখা যাবে যে পার্ফর্মেন্সের ক্ষেত্রে পার্ফর্মেন্সের ক্ষেত্রে এই স্মার্টফোনটি গড়, আর হেভি গেমিংয়ের ক্ষেত্রেও এর বিষয়ে রিভিউয়ের প্রথমেই আপনাদের বলেছি। এই স্মার্টফোনটিতে আমি প্রায় 10-15 মিনিট পর্যন্ত টানা গেমিং করেছি আর এই ফোনটি খুব তাড়াতাড়ি গরম হয়ে যায়। তবে এই দামের অন্য ফোনের বিষয়ে আমরা যদি কথা বলি তবে এই দামের অন্য ফোনের মধ্যেও এই গরম হওয়ার সমস্যা দেখা যায়। হেভি গেমিং ছাড়া এই স্মার্টফোনটিতে আমি ব্রাইজিং থেকে মেসেঞ্জিং, চ্যাটিং, মেলিং, সোশ্যাল মিডিয়া আর মাল্টি টাস্কিংও করেছি কিন্তু এতে থাকা 3GB র‍্যামের কারনে একে গড় হিসাবেই মার্ক করব।

এই ফোনটিতে থাকা এর কোয়াড কোর প্রসেসার ফোনের কিছু কাজ ভাল করে। এই স্মার্টফোনটিকে আমি বাজেটের মধ্যে একটি প্রিমিয়াম ডিজাইনের স্মার্টফোন বলব। আর এছাড়া এই ফোনের অ্যান্ড্রয়েড Oreo বেশ ভাল ব্যাপার। আপনাদের এও বলে রাখি যে এর বেঞ্চ মার্ক স্কোরও আমায় তেমন প্রভাবিত করেনি এটি Xiaomi Redmi 5য়ের থেকে বেশ কম।

এই ফোনটির ব্যাটারির বিষয়ে বললে দেখা যাবে যে এই স্মার্টফোনটিতে একটি 4,000mAhয়ের ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে কিন্তু আজকাল আপনারা এই দামে 5,000mAhয়ের ব্যাটারি পাবেন। এই ফোনটি সম্পূর্ণ ভাবে চার্জ হতে প্রায় দুঘন্টা সময় নেয়। এটা বলে রাখি যে এর ব্যাটারি ভাল কারন গেমিংয়ের পরেও 6-7ঘন্টা পর্যন্ত চলে। আর এই ফোনে যদি বেশি গেমিং বা ব্রাউজিং না করেন তবে এই ফোনটি একবার চর্জ করলে সারা দিন চলে যাবে। এই ফোনে আমি ফোন করা থেকে ব্রাউজিং সবই করেছি আর তাও এই স্মার্টফোনটির পার্ফর্মেন্স আমার ভাল লাগেনি। এর পার্ফর্মেন্স আমায় নিরাস করেনি তবে এই পার্ফর্মেন্স এখন একটি গড় পার্ফর্মেন্স। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এটি একটি অ্যাভারেজ স্মার্টফোন আর কিছু কিছু ক্ষেত্রে এর কোন তুলনা হবে না।

logo
Ashwani Kumar

Advertisements
Advertisements

iVoomi i2

iVoomi i2

Digit caters to the largest community of tech buyers, users and enthusiasts in India. The all new Digit in continues the legacy of Thinkdigit.com as one of the largest portals in India committed to technology users and buyers. Digit is also one of the most trusted names when it comes to technology reviews and buying advice and is home to the Digit Test Lab, India's most proficient center for testing and reviewing technology products.

We are about leadership-the 9.9 kind! Building a leading media company out of India.And,grooming new leaders for this promising industry.