Comio x1 note Review

দ্বারা Ashwani Kumar | আপডেট করা Jun 20 2018
Comio x1 note  Review
DIGIT RATING
60 /100
  • design

    54

  • performance

    53

  • value for money

    57

  • feature

    68

  • PROS
  • ফেস আনলক আর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সার
  • অসাধারন ডিজাইন
  • সেলফি ইন্ট্রু ফিচার
  • কল রেকর্ড
  • CONS
  • গড় ক্যামেরা
  • গড় ডিসপ্লে
  • প্লাস্টিক বডি

নির্ণয়

যেখানে এক দিনে ভারতীয় স্মার্টফোন বাজার ধিরে ধিরে এগিয়ে চলেছে আর সেখানে এই ধরনের স্মার্টফোন লঞ্চ হওয়া খুব স্বাভাবিক। আর এই স্মার্টফোনে আপনারা কিছু ভাল ডিসপ্লে, ভাল ক্যামেরা, কিছু ভাল ডিজাইন আর বিল্ডের সঙ্গে পাবেন। আর কোন ফোন হয়ত দামের জন্য আপনার পছন্দ হবে। তবে আজকে Comio X1 Note ডিভাইসটিকা আপনারা এর ডিজাইনের জন্য পছন্দ করতে পারেন। এই ডিভাইসের দাম 9,999টাকা আর নিজের ডিজাইনের জন্য এই ফোনটি ইউজার্সদের কাছে নিজের আলদা পরিচিতি করতে পারে। এই ডিভাইসটিতে একটি মিরার গ্লাস ফিনিশ দেওয়া হয়েছে আর এছাড়া এটি কিছুটা Moto G সিরিজের কোন স্মার্টফোনের মতন দেখতে লাগে। আর এর ক্যামেরা এর ইউনিট আছ। যা একে এক রকমের বানায়।

আপনাদের বলে রাখি যে যদি আপনারা এই ডিভাইসের পার্ফর্মেন্স ইত্যাদিতে বেশি পার্থক্য না থাকে তবে এই ডিভাইসটি বেশ ভাল থাকবে, আর এছাড়া এর ডিজাইনের কারনে আপনারা এটি বন্ধুদের কাছে আপনার জনপ্রিয়তা বারতে পারে। তবে আপনারা যদি এই দামের কাছাকাছি অন্য কোন ডিভাইস নিতে চান তবে আপনাদের জন্য এই দামে সাওমির ভারতীয় বাজারে কব্জা করতে পারে, আর এছাড়া Honor য়ের স্মার্টফোনও এখন আগের থেকে বেশ কিছু ভাল স্মার্টফোন নিয়ে আসছে।

BUY Comio x1 note

Buy now on amazon পাওয়া যাচ্ছে 6380
Buy now on flipkart পাওয়া যাচ্ছে 6399

Comio x1 note detailed review

যখন এক দিকে গত বছর মানে 2017 সালে ডুয়াল ক্যামেরা আর 18:9 অ্যাস্পেক্ট রেশিও যুক্ত ডিসপ্লের সঙ্গে লঞ্চ করা হয়েছিল সেখানে 2018 সালের এই দুটি ফিচার্সের সঙ্গে ফোনের ডিজাইনও স্পেশাল বানানো হয়েছে। তবে আমরা যদি কোন স্মার্টফোনের ডিজাইনের ডিজাইন ভাল হয় তবে আপনি সেই স্মার্টফোনটির প্রতি আকর্ষিত হবেন এই বিষয়ে কোন সন্ধেহ নেই। আর আমরা যদি ভারতীয় বাজারে Honor স্মার্টফোনের বিষয়ে কথা বলি তবে আমরা আদেখতে পাব যে কম দামের মধ্যে বিগত বেশ কিছু সময় ধরে এটি গ্রাহকদের আকর্ষিত করার জন্য স্মার্টফোনের ডিজাইন খুব ভাল করছে। আর এছাড়া স্যামসং আর অ্যাপেল এই ক্ষেত্রে বেশি লক্ষ্য রাখছে আর নিজেদের ডিজাইনে উন্নতি করছে। আর সেখানে এই বিষয়ে জানে যে প্রায় 90শতাংশ বাজেট মিড-রেঞ্জ স্মার্টফোন এক রকমের দেখতে হয়, আর এবার আলাদা আলাদা কোম্পানি গুলি কিছু এমন জিনিস দিচ্ছে যার ফলে এগুলিকে চেনা অনেক সময়েই সমস্যার হচ্ছে।


জনপ্রিয় ব্র্যান্ডিং আর অন্য কিছু জিনিস এদের কোথাউ না কোথাউ একে অপরের থেকে আলাদা করে দেয়। আর আজকে আমরা Comio র নতুন আর কোম্পানির তরফে তাদের ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস বলা ডিভাইস Comio X1 Note নিয়ে এসেছি। আসলে এই ফোনটি আমাদের কাছে বিগত বেশ কিছু সময় ধরে আছে। আর এই ডিভাইসটি প্রথমে দেখে একে তাই মনে হবে।ফোনে একটি সুন্দর ডিজাইন দেওয়া হয়েছে। আর এর আগে প্রথম বার এটি দেখে আমার মনে হয় যে এটি মেটাল ইউনিবডি ডিজাইন যুক্ত।

যা গ্লসি হওয়ার কারনে আরও প্রিমিয়াম দেখতে লাগছে। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই আমি জানতে পারলাম যে এটি মেটালের নয় এটি প্লাস্টিকের। আসলে এতে ব্যাবহার করা মেটিরিয়ালের বিষয়ে যদি কথা বলি তবে এটি বেশ ভাল, কারন এর কারনে এই ফোনটি হাল্কা ওজনের হয়েছে। আর এর জন্য এটি স্লিম ফোর্ম ফ্যাক্টার যুক্ত। আর যদি এই ডিজিয়ানের বিশেয় সম্পূর্ণ আকর্ষণ যায় তবে আপনি এরর রেয়ার প্যানেলটি দেখলে আপনারা মনে হবে যে এটি Motorola র Moto G সিরিজের কোন স্মার্টফোন। কিন্তু এতে আপনারা ডুয়াল ক্যামেরা সঙ্গে ফ্ল্যাশ লাইটের কিছু পার্থক্য দেখতে পারবেন। এই ডিভাইসটি আমরা বিগত বেশ কিছু দিন ধরে ব্যাবহার করেছি। আর আসুন দেখা যাক যে এর ডিজাইন আর বিল্ড ছাড়া এই ডিভাইসে আমাদের আর কী পছন্দ হল।

বিল্ড আর ডিজাইন

এই ফোনটির ডিজাইন আমার নিঃসন্দেহে পছন্দ হয়েছে। তবে কোম্পানির তরফে নিজদের ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস বলা এই ডিভাইসের ডিসপ্লেকে আরও ট্রেন্ডি করা হয়নি, যা আমার পছন্দ হয়নি আর যা আমার কাছে এর একটি বড় ত্রুটি বলে মনে হয়েছে। আমরা গত বছর থেকে এই বছরের স্মার্টফোন দেখেছি, দেখেছি যে একটি ট্রেন্ডি ডিসপ্লের সঙ্গে লঞ্চ করা হ্য।আর তা সে মিড-রেঞ্জ স্মার্টফোন হোক বা হাই-এন্ড স্মার্টফোন। আর সব স্মার্টফোনে এই ডিসপ্লে দেখা যায়, আর সেখানে আজকাল ত 19:9 অ্যাস্পেক্ট রেশিওর ডিসপ্লে যুক্ত অফন আসা শুরু করে দিয়েছে। একে ট্রেন্ডের পরিবর্তনও বলা যায়। আর আসলে 9,999টাকা দাম দেখে একে একটি প্রিমিয়াম দেখতে স্মার্টফোন বলাই যায়, আর এছাড়া এতে একটি 6ইঞ্চির Full View FHD+ 2.5D কার্ভড মানে 1080x2160 পিক্সাল রেজিলিউশানের ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে।

তবে টপে আর বটমে ঠিক বেজেল থাকার জন্য এই ডিসপ্লে তেমন বড় মনে হয়না। আর এই ফোনটির ডিজাইনের বিষয়ে দেখে এটা মনে হয় যে এটি একটি ইউনিবডি মেটাল দিয়ে তৈরি, কিন্তু তা নয় এটি গ্লসি প্লাস্টিক মেটিরিয়াক দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। আর যা একে প্রিমিয়াম লুক দেয়। আর এর টপে বেজেলে আপনারা Proximity সেন্সারের সঙ্গে এর ফ্রন্ট ক্যামেরা আর একটি ফ্ল্যাশ পাবেন। আর এছাড়া এর বটমে বেজেলে নেগিভেশান বটন নেই আর এটি ডিসপ্লের ভেতরে দেওয়া হয়েছে। আসলে এটি যদি বটমে বেজেল রাখা হত তবে এর ডিসপ্লে আরও বড় হতে পারত।

এই ফোনটির টপে একটি 3.5 mmয়ের অডিও জ্যাক আছে, আর যা আজকাল USB Type C Port আসার পরে অনেক স্মার্টফোন থেকে সরিয়ে দেওয়া হেয়ছে। আর এছাড়া এর বটমে আপনারা মাইক্রো USB Port আর এছাড়া স্পিকার গ্রিলস পাবেন, আর যা এখনকার সব স্মার্টফোনেই একই রকমের হয়। ডান দিকে আপনারা ফোনের পাওয়ার বটন পাবেন আর যা জিগজ্যাগ ডিজাইনের আর এর ঠিক ওপরে আপনারা এতে এর সিম ট্রে পাবেন আর এ থেকে আমরা এটা জানতে পারছি যে আপনি ফোনের ব্যাক প্যানেলে আর ব্যাটারি কে আলাদা করতে পারবেন। আর বা দিকে আপনারা এর ভলিউম রাক্র বটন পাবেন।

ডিজাইনে কিছু পরিবর্তন করে সব কোম্পানিই তাদের স্মার্টফোনকে কিছু আলদা বানায়। আর এখানে ছোট খাট পরিবর্তন করে স্মার্টফোনকে একে অপরের থেকে আলাদা করে। আর এই ফোনটি প্রিমিয়াম লাগার সব থেকে বড় কারন এর ব্যাক ডিজাইন, ফোনে একটি গ্লসি ব্যাক দেওয়া হয়েছে যার কারনে এটি আকর্ষণীয় দেখতে হয়েছে। এই ফোনে দুটি আলাদা আলাদা কালার ভেরিয়েন্ট মানে রয়াল বকু আর সানরাইজ গোল্ড কালারে আনা হয়েছে, আমাদের কাছে এর সানরাইজ গোল্ড ডিভাইসটি আছে। তবে এর আরও আকর্ষণীয় কালারের কথা যদি বলি সেটি কিন্তু রয়াল ব্লু কালার।

Honor ও ভারতে তাদের বেশ কিছু স্মার্টফোনকে এই রঙে লঞ্চ করেছে, আর তা সবার বেশ পছন্দও হয়েছে।

ব্যাকপ্যানেলে আপনারা একটি ক্যামেরা ইউনিট পাবেন, আর যা আপনাদের কোথাউনা কোথাউ এর আগে দেখেছেন। আর আপনার যদি ফোনের বিষয়ে কিছু খবর রাখার সখ থাকে তবে অবশ্যই আপনারা এরকম আগেও দেখেছেন। আর এই ডিভাইসের ক্যামেরা ইউনিটকে একদম Moto G সিরিজের কোন স্মার্টফোনে দেখা গেছে। আর আপনারা এই ডিভাইসে একটি LED ফ্ল্যাশ পাবেন। আর এর ঠিক নীচে একটি সার্কুলার ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেনারও পাবেন আর যা আমরা সধারনত সব স্মার্টফোনেই দেখে থাকি। আর এছাড়া ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সারের নীচে ব্র্যান্ডিং দেখা যাবে। আর সব মিলিয়ে এই ফোনটি বাজারে নিজেদের একটি আলাদা পরিচয় এই ক্ষেত্রে তৈরি করতে পারে।। 

ডিসপ্লে আর অন্য স্পেক্স

এই ফোনটিতে আপনারা একটি 6ইঞ্চির Full View FHD+ 2.5D কার্ভড ডিসপ্লে পাবেন, যা আমার গড় বলে মনে হয়েছে, যা আপনি ফোনের সেটআপ করার পরে প্রথম বার ডিসপ্লেতে এলে আপনি এই সময়ে এটা জেনে যাবেন যে এর ডিসপ্লে গড়। আর কোম্পানি ডিসপ্লে তে নতুন কিছু করার চেষ্টা করেনি। এর ব্রাইটনেস ঠিকঠাক, আর কালার রিপ্রোডাকশানকেও ভাল করা যেতে পারত। আর এছাড়া যদি কন্ট্রাস্ট ইত্যাদির বিষয়ে যদি কথা বলি তবে তা ভাল। আর এবার আপনারা এই ফোনের আনলক করলে বুঝতে পারবেন যে ডিসপ্লে বেশ ব্রাইট, তবে এতে বেশি ভাল ডিসপ্লে থাকার ফলে নিজের পরিচয় বজায় রাখতে হয়ত পারবেনা কিন্তু অন্য ফিচার্স মানে ডিজাইন ইত্যাদি একে আলাদা বানিয়েছে।

সব মিলিয়ে এই ফোনটির ডিসপ্লে আমার গড় বলেই মনে হয়েছে। আর আসলে বড় হওয়ার জন্য আপনারা এতে ভিডিও আর গেমিংয়ের সময়ে ভাল অভিজ্ঞতা পাবেন। আর এর কারনে এর ভ্যালু কিছু বেরে যাবে। তবে আমরা যদি বেজেলসের কমিয়ে দি তবে একে থিন করা যায় আর তা হলে বড় ডিসপ্লে পাওয়া আবে। আর এই সময়ে থিক বেজেল হওয়ার জন্য আপনারা এতে 6ইঞ্চির একটি বড় ডিসপ্লে থাকার পরেও একে এরকম লাগে। সব মিলিয়ে আমরা একে গড় বলতে পারি। 

 

আর আপনারা এর ডিসপ্লে ছাড়া এর UI য়ের বিষয়টি দেখেন তবে আপনারা এতে একটি স্টক অ্যান্ড্রয়েড য়ের কাছাকাছি ডিভাইস কিনছেন। UIতে বেশি কিছু পরিবর্তন করা হয়নি। আপনারা আজকাল ফোনে UIসাধারনত দেখতে পাবে, আসলে ডিভাইসে স্টক অ্যান্ড্রয়েডে লঞ্চ করা হয় তবে আতাতে আপডেট আসতে কিছু সময় লাগে, কিন্তু আজকাল কোম্পানি গুলি সময়ে সময়ে আপডেট দেয় আর নিজেদের ফোনে স্টক অ্যান্ড্রয়েডের কাছের UIরাখা হয়।

আমরা যদি এই ফোনের অন্য ফিচার্সের বিষয়টি দেখি তবে আপনাদের বলে রাখি যে এতে অ্যান্ড্রয়েড 8.0 ওরিওতা কাজ করে। আর এছাড়া এতে একটি কোয়াড কোর মিডিয়া টেক MT8735 চিপসেট আছে। আর এর ক্লক স্পিড 1.4GHz  আর এই ফোনে আপনারা 3GB র‍্যাম আর 32GB স্টোরেজ পাবে। আর একে মাইক্রোএসডি কার্ড দিয়ে 128GB পর্যন্ত এক্সপেন্ড করা যায়। আর এর ডিসপ্লে FHD প্যানেলের। আর এই ফোনে ডিউরেবেল স্ক্রিন গ্লাসের সুরক্ষা আছে। এই ফোনে একটি 2900mAhয়ের ব্যাটারি আছে। আর এই ব্যাটারিটি আমাদের কাছে টেস্টে প্রায় সারে পাঁচ ঘন্টা পর্যন্ত কাজ করতে সফল হয়েছে। আর এই ফোনে একটি ডুয়াল ক্যামেরা আছে 13+5মেগাপিক্সালের একটি AF ক্যামেরা কম্বো আছে, আর এছাড়া এতে একটি 8মেগাপিক্সালের ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

রেয়ার ক্যামেরাতে আপনারা বেশ কটি ট্রেন্ডি ফিচার্স পাবেন, আর যাতে পোট্রেড মোড আছে। আর এছাড়া এতে আপনারা ফোনে একটি ইন্ট্রুরেড সেলফি ফিচার পাবেন, যা আপনার অজান্তে ফোন আনলক করেতে চাইবে, আর এর সঙ্গে আপনারা এতে কল রেকর্ডিং ফিচারও পাবেন, আর এই ফোনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সারের সঙ্গে ফেসআনলক ফিচার পাবেন। আর এর ফিঙ্গাররপিন্ট সেন্সার ফোনে আনলক করা যাবে শুধু তাই না তা কল রিসিভ করতে পারবে, ছবি তুলতে পারবে আর অ্যাপসের বাইরেও যেতে পারবে।

এই স্মার্টফোনটি বাজারে উপস্থিত অনেক 12,000টাকার স্মার্টফোনের সঙ্গে করা প্রতিযোগিতা দেবে কিন্তু কিছু কারনে এটি পিছয়ে যেতে পারে। স্মার্টফোনটিতে 3GB র‍্যামের সবগে 32GB স্টোরেজ আছে আর এটি অন্য অনেক স্মার্টফোনের কাছে লো হয়ে যেতে পারে।

ক্যামেরা

আপনারা জানেন যে এতে একটি ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ দেওয়া হয়েছে। এতে আপনারা একটি 13মেগাপিক্সালের 5মেগাপিক্সালের রেয়ার ক্যামেরা সেটআপ দেওয়া হয়েছে। আর এর পরে ফোনে একটি 8মেগাপিক্সলাএর ফ্রন্ট ক্যামেরা দেওয়া হ্যেহে। ফোনের ক্যামেরা পার্ফর্মেন্স বেশ স্লো। স্মার্টফোনের ক্যামেরা পার্ফর্মেন্সের বিষয়ে যদি কথা বলি তবে আমার এটি ভাল লাগেনি। আর এর মানে এই নয় যে এই ফোন থেকে ছবি তুলতে কোন সমস্যা হয়েছে।

তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করার জন্য ছবি সি স্মার্টফোন থেকে নেওয়া যাবে। আর এর মানে এই যে ক্যামেরা অত উন্নত নাহেলেও আপনারা যদি দামের দিকটি দেখেন তবে আপনাদের বলে রাখি যে এই দামে ক্যামেরার সঙ্গে এই কম্প্রোমাইজ করা যায়। এর মাধ্যমে কম ছবিই তুলেছি তবে আমি যখন একে ল্যাপটপে দিলাম তখন একে আর ভাল করা যাবেনা বলেই মনে হয়েছিল। এটি অন্য ফোনের মতন ছবি তুলতে পারলেও এটি অত ডিটেল নিতে পারেনা। তবে দিনের আলোতে এটি ভাল ছবি নিতে পারে কিন্তু রাতে এটি ভাল ছবি তুলতে পারেনা।

 

ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরা নিয়েও এমন কিছু বলা যায়। আর এর মাধ্যমে আমিও কিছু ছবি নিয়েছি কিন্তু আমার তাই মনে হয়েছে এর মাধ্যমে নেওয়া ছবি আপনারা শুদু সোশ্যাল মিডিয়াতে ব্যাবহার করতে পারবেন, কারন বাকি যায়গায় এটি আপনাদের নিরাশ করতে পারে।

ব্যাটারি আর পার্ফর্মেন্স

এই ফোনটিতে আপনারা একটি 2,900mAhয়ের ক্ষমতা যুক্ত ব্যাটারি পাবেন, যা দিয়ে আওনি সহজে এক দিন চলাতে পারবেন। আমাদের ব্যাটারি টেস্টে এই ডিভাসিএর ব্যাটারি হেভি ব্যাবহারে মাত্র 5:27 মিনিট চলেছে। এই স্মার্টফোনে আপনি গেমিং করেছি আর অনেক যায়গায় গেমিংয়ে ফোনটির কাছে নিরাশ হয়েছি। অনেক সময়ে আপনাদের মনে হতে পারে যে এই ফোনটি খুব বেশি গরম হয়ে যায়। চার্জিংয়ের সময়ে এটি বোঝা যায়। আর এই দামের ফোনে আপনি হয়ত এটি খুব একটা নজর দেবেননা।

ফোনটির ব্যাটারি সম্পূর্ণ ভাবে চার্জ হতে প্রায় 1:30 থেকে 2:00 ঘন্টা সময় নেই। আর এর পরে এটি টানা ব্যাবহার করার পরে এটি আপনি সারা দিন সহজেই কাটিয়ে দিতে পারেন। এর ব্যাটারি আপনি একদিন সহজেই কাটিয়ে দেওয়া যায়।

আমি আপনাদের যেমনটা বলেছি যে এই ফোনের পার্ফর্মেন্স তেমন ভাল নয়। আর এটি হেভি গেমিং করার জন্য তৈরি হয়নি। তবে আপনি এতে নর্মাল গেমিং করতে পারবেন। কিন্তু আপনি যদি ভাবেন যে আপনি এতে সব গেমিং বা ভিডিও ইত্যাদি করতে পারবেন তবে আপনারা এই ধারনা ভুল। কারন এটি অত সক্ষম নয় আসলে আপনাদের বলে রাখি যে আমাদের টেস্টের সময়ে এই ডিভাইসে অনেক বেঞ্চ মার্ক টেস্ট চলেনি মারা অনেক বার তা চালানোর চেষ্টা করেছি।

আর যখন কোন ফোনে কোন বেঞ্চমার্ক টেস্ট চলে না তখন আপনি বুঝতে পারছেন যে এর পার্ফর্মেন্স কেমন হতে পারে, আসলে আমি এটি ব্যাবহার করার সময়ে এই ডিভাইসটি আমার অনেক সময়ে স্লো লেগেছে।

তবে এই স্মার্টফোনটি সেই ইউজার্সদের জন্য পারফেক্ট বলা যাবে যারা প্রথম বার কোন স্মার্টফোন কিনছেন। এই সময়ে এই বাজেটে একটি ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপের আর সব থেকে বড় ফিচার মানে ফুল স্ক্রিন ডিসপ্লে জুতক ফোন পাওয়া যাচ্ছে। আর এছাড়া এর অন্য কিছু ফিচার্স আমার পছন্দ হয়েছে। কিন্তু তাও আমার এই ডিভাইসটিকে গড় ডিভাইস বলে মনে হয়েছে। আসলে আপনি যদি একটি মিরার গ্লাস ফিনিশিং য়ের এরকম কোন ডিভাসি চান তবে এই ডিভাইসটি আপনার পছন্দ হবে। আর আপনি তা কোন সমস্যা ছাড়া নিতে পারেন।  

logo
Ashwani Kumar

Advertisements
Advertisements

Comio x1 note

Comio x1 note

Digit caters to the largest community of tech buyers, users and enthusiasts in India. The all new Digit in continues the legacy of Thinkdigit.com as one of the largest portals in India committed to technology users and buyers. Digit is also one of the most trusted names when it comes to technology reviews and buying advice and is home to the Digit Test Lab, India's most proficient center for testing and reviewing technology products.

We are about leadership-the 9.9 kind! Building a leading media company out of India.And,grooming new leaders for this promising industry.